আলোর নিউজ https://www.alornews.com/2022/07/blog-post_1.html

বাংলাদেশে ২০২২ সালে কোরবানির ঈদ কত তারিখে

বাংলাদেশে ২০২২ সালে কোরবানির ঈদ কত তারিখে 

আজ আমরা আলোোচনা করবো বাংলাদেশে ২০২২ সালের ঈদুল আজহা নিয়ে। ২০২২ সালে কোরবানির ঈদ কত তারিখে। বাংলাদেশে কত তারিখে হবে তা জানতেই আমাদের এই পোস্ট । প্রথমেই জানিয়ে রাখি বাংলাদেশের কোরবানীর ঈদ আগামী জুলাই মাসের 10 তারিখে।



ঈদুল আজহা প্রত্যেক মুসলমানদের জন্য এক অনন্য আনান্দ উৎসব এর দিন। এই দিনটি আরবি জিলহজ্জ মাসের ১০ তারিখ পালন করে থাকে, এই দিনটিত পবিত্র হজ্জ ও ত্যাগের প্রতিক হিসেবে গরু, ছাগল, দুম্বা, কুরবানি দেওয়া হয়। চলুন দেখে নিই বাংলাদেশে ২০২২ সালে ঈদুল আজহা কত তারিখে হবে।


আরো পড়ুনঃ প্রিমিয়াম সেবা নিয়ে এলো টেলিগ্রাম 


 সূচিপত্রঃ বাংলাদেশে ২০২২ সালের কোরবানির ঈদ কত তারিখ। 

ঈদুল আজহা কি? 

ঈদুল আজহা মূলত একটি আরবি শব্দগুচ্ছ। এর অর্থ “ত্যাগের উৎসব”। এই উৎসবের মূল প্রতিপাদ্য হল ত্যাগ করা। এদিন ফজরের নামাজের পর মুসলমানরা ঈদগাহে গিয়ে দুই রাকাত ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করেন এবং এর পরপরই আল্লাহর নামে গরু,ছাগল,ভেড়া,দুম্বা ও উট কুরবানি করেন তাদের আর্থিক সামর্থ্য অনুযায়ী

বাংলাদেশে ২০২২ সালের কোরবানি ঈদ কত তারিখে

ইসলামের বিভিন্ন বর্ণ না অনুসারে, আল্লাহতায়ালা ইসলামের নবী হজরত ইব্রাহিম (আঃ)-কে স্বপ্নে তার সবচেয়ে প্রিয় বস্তু কোরবানি করার নির্দেশ দিয়েছিলেন। 

এই নির্দেশ অনুসারে হজরত ইব্রাহিম (আঃ) যখন তার প্রিয় পুত্র হজরত ইসমাইল (আঃ) কে কোরবানি দিতে যাচ্ছিলেন, তখন সৃষ্টিকর্তা তাকে তা করতে নিষেধ করেন এবং পুত্রের পরিবর্তে পশু কোরবানি করার নির্দেশ দেন। 

এই ঘটনার স্মরণে সারা বিশ্বের মুসলমানরা আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য প্রতি বছর এই দিনটি পালন করে থাকে। হিজরি ক্যালেন্ডার অনুযায়, ঈদুল আজহার জিলহজ্জ মাসের ১০ তারিখ থেকে ১২ তারিখ পর্যন্ত ৩ দিন স্থায়ী হয়। 

হিজরি চান্দ্রবর্ষের হিসাব অনুযায়ী ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহারের মধ্যে ২ মাস ১০ দিন পার্থক্য রয়েছে। এটি দিন হিসাবে ৭০ দিন হয়ে থাকে। আর বাংলাদেশে ২০২২ সালের কোরবানি ঈদ ইংরেজি সাল হিসাবে ১০ জুলাই ২০২২ পালিত হবে।


 (**চাঁদ দেখার উপর নির্ভরশীল **) ( চাঁদ দেখার উপর নির্ভরশীল জুলাই/2022 মাসের 10 তারিখ 2022 সালের ঈদুল আজহা )


কুরবানির গুরুত্ব ও তাৎপর্য | ২০২২ সালের কোরবানি ঈদ কত তারিখে বাংলাদেশ।

গুরুত্বঃ

ঈদুল আজহার গুরুত্ব অপরিসীম। এ ব্যাপারে কুরআন-হাদিসে যথেষ্ট গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। আল্লাহ তাআলা বলেন: কুরবানীর পশু সমূহকে আমি তোমাদের জন্য আল্লাহর নিদর্শন স্বরূপ অন্তর্ভুক্ত করেছি এতে তোমাদের জন্য কল্যাণ রয়েছে' (হজ্জ ৩৬)। আল্লাহ বলেন: আর আমরা তাঁর (ইসমাঈলের) পরিবর্তে যবহ করার জন্য দিলাম একটি মহান কুরবানী। আমরা এটি পরবর্তীদের মধ্যে রেখে দিয়েছি' (ছাফফাত 106-106)। আল্লাহ বলেন, فَصَلِّ لِرَبِّكَ وَانْحَرْ ‘তোমরা তোমাদের রবের সন্তুষ্টির জন্য ছালাত আদায় কর এবং কোরবানি কর’ কাফেররা তাদের দেব-দেবীদের পূজা করে এবং বিভিন্ন কবর ও বেদিতে এবং মূর্তিকে উৎসর্গ করে। প্রতিবাদে, মুসলমানদেরকে আল্লাহর জন্য ছালাত আদায় করতে এবং তাঁর সন্তুষ্টির জন্য কোরবানি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 


আরো পড়ুনঃ প্রিমিয়াম সেবা নিয়ে এলো টেলিগ্রাম 


আমাদের প্রিয় নবী মুহাম্মাদ (ছাঃ) বলেছেন, "যে ব্যক্তি তার সামর্থ্য থাকা সত্ত্বেও কুরবানী করে না, সে যেন আমাদের ঈদুল ফিতরের নিকটবর্তী না হয়।" যেহেতু রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) নিজে প্রতি বছর মদীনায় আদায় করতেন এবং ছাহাবীগণও নিয়মিত কুরবানী করতেন। তারপর থেকে, এটি মুসলিম উম্মাহর সক্ষম সদস্যদের মধ্যে অব্যাহত রয়েছে। এটা কিতাব ও সুন্নাহ এবং উম্মাহর ঐক্যমত দ্বারা প্রমানিত।


তাৎপর্যঃ

ইব্রাহীম (আ.), বিবি হাজেরা এবং ইসমাঈলের পরম আত্মত্যাগের স্মরণে ঈদ-উল-আযহা একটি পরস্পর সংযুক্ত উৎসব। ইব্রাহীম (আঃ) কে কোরানে মুসলিম জাতির পিতা হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে (হজ্জ ৭)। মুসলিম বিশ্বের জন্য ত্যাগের সর্বশ্রেষ্ঠ আদর্শ এই পরিবার। তাই ঈদুল আযহার দিনে সমগ্র মুসলিম জাতি ইবরাহীমী সুন্নাহ অনুসরণ করে আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনে সচেষ্ট হয়। ইব্রাহিম (আ.)-এর স্মৃতি বিজড়িত মক্কা-মদিনায় সারা বিশ্বের লাখ লাখ মুসলমান সমবেত হন ত্যাগের স্মরণে জিলহজ মাসের হজ উপলক্ষে। তারা আব্রাহামিক আদর্শ অনুসরণ করার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করে। হজ মুসলিম উম্মাহর ঐক্য, সংহতি ও ভ্রাতৃত্বের এক অনন্য দৃষ্টান্ত। যা আমাদের প্রতি বছর তাওহীদ প্রেরণায় উদ্বুদ্ধ করে। বিশ্ব মুসলিম ভ্রাতৃত্বকে আমরা দৃঢ়ভাবে অনুভব করি। ঈদের উৎসব একটি সামাজিক উৎসব, সম্মিলিত আনন্দের উৎসব। কোরবানি ঈদুল আজহা উৎসবের একটি অংশ। কুরবানী হল পবিত্রতা ও পরিশুদ্ধির মাধ্যম। এটি একটি সামাজিক প্রথা হলেও আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য এটি চালু করা হয়েছে। প্রতি মুহূর্তে তিনিই একমাত্র বিধাতা যার রহমতের আশায় মানুষ। আমাদের সম্পদ, পরিবার ও সমাজ তাঁর জন্য উৎসর্গ করা হয়েছে এবং ত্যাগ সেই উৎসর্গের প্রতীক।


মানুষ ত্যাগের মাধ্যমে আল্লাহর নৈকট্য লাভ করতে চায়। পরীক্ষা হল মানুষ আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য তার সবচেয়ে লালিত জিনিসটি ত্যাগ করতে ইচ্ছুক কিনা। ত্যাগ আমাদের বারবার সেই পরীক্ষার কথা মনে করিয়ে দেয়। এ কারণেই ইব্রাহিম (আ.)-এর পরীক্ষা ছিল আল্লাহর। আমাদের আর পুত্র বলিদানের অগ্নিপরীক্ষার সম্মুখীন হতে হবে না। একটি ‘মুসিন্নাহ’… হালাল পশু কোরবানির মাধ্যমে আমরা সেই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারি। 


ঈদুল আজহার সালাতের নিয়ত ও নিয়ম | ২০২২ সালের কোরবানি ঈদ কত তারিখে বাংলাদেশ


ঈদুল আজহার নামাজের নিয়ত (আরবি)


নাওয়াইতু আন উছাল্লিয়া লিল্লাহি তা আলা রাকয়াতাই ছালাতি ঈদিল আযহা মাআ ছিত্তাতি তাকবীরাতি ওয়াজিবুল্লাহি তা আলা ইক্বতাদাইতু বিহাজাল ইমামি মুতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবার।


ঈদুল আজহার নামাজের নিয়ত (বাংলা) 


 কেবলামুখী হয়ে ঈদুল আজহার দুই রাকাত ওয়াজিব নামাজ ছয় তাকবিরের সঙ্গে আদায় করছি "আল্লাহু আকবার"।

 ঈদের সালাত পড়ার নিয়ম 

 প্রথমে ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ত করুন, তারপর ইমামের সাথে শুরুর তাকবীর (‘আল্লাহু আকবার’) বলুন। এবং সূচনা প্রার্থনাটি নিজেকে শান্তভাবে বলুন। ইমামের সাথে আরও ৩টি তাকবীর দিন, প্রতিটির জন্য আপনার হাত উঠান, ইমাম সূরা আল ফাতিহা এবং একটি অতিরিক্ত সূরা তেলাওয়াত করবেন সেটি শুনুন। ইমামের সাথে রুকুতে যাওয়ার সময় ‘আল্লাহু আকবার’ বলুন এবং যথারীতি নামাজের প্রথম রাকাতটি সম্পূর্ণ করুন। 


দ্বিতীয় রাকাতে, ইমামের সূরা আল ফাতিহা এবং একটি অতিরিক্ত সূরা পাঠ শুনুন, এবং ইমামের সাথে অতিরিক্ত ৩টি তাকবীর দেয়া। তৃতীয় ও শেষ তাকবিরের পর রুকুর আগে দুই হাত দুই পাশে রাখুন। ইমামের সাথে রুকু অবস্থায় যাওয়ার সময় ‘আল্লাহু আকবার’ বলুন এবং যথারীতি নামাজের রাকাতটি সম্পূর্ণ করুন। 


অবশেষে সালাত শেষ করে কুরবানির পশু আল্লাহর নামে জবেহ করুন। ২০২২ এর জিলহজ্জ মাসের ক্যালেন্ডার |


 ২০২২ সালের কোরবানি ঈদ কত তারিখে বাংলাদেশ 

আরো পড়ুনঃ প্রিমিয়াম সেবা নিয়ে এলো টেলিগ্রাম 


শেষ কথাঃ ২০২২ সালের কোরবানি ঈদ কত তারিখে বাংলাদেশ 

বন্ধুরা আজ তোমাদের জন্য ২০২২ সালের কোরবানি ঈদ কত তারিখে বাংলাদেশ তা নিয়ে নিবন্ধ লিখেছি। উপরের নিবন্ধটিতে ২০২২ সালের কোরবানি ঈদ কত তারিখে বাংলাদেশ, ঈদুল আজহা ২০২২ কত তারিখে বাংলাদেশ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। আশা করি তোমাদের ভালো লাগবে। এরকম আরও ২০২২ সালের কোরবানি ঈদ কত তারিখে বাংলাদেশ, ঈদুল আজহা ২০২২ কত তারিখে বাংলাদেশ, সহ সুন্দর সুন্দর পোস্ট পেতে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। 

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া